এবার ভোটের লড়াইয়ে কারিনা?

বিনোদন

ভারতের রাজনীতিতে বলিউড তারকাদের অংশগ্রহণ নতুন কিছু নয়। বিভিন্ন সময়ে অনেক বড় তারকাই নেমেছেন রাজনীতির এই পিচ্ছিল ময়দানে। এবার নাকি সেই তালিকায় কারিনা কাপুর খানের নাম যোগ করতে চাইছে ভারতের বর্তমান বিরোধী দল কংগ্রেস। তাকে লোকসভা নির্বাচনে মধ্যপ্রদেশের ভোপাল থেকে প্রার্থী করার আভাস নাকি মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস সূত্রে পাওয়া যাচ্ছে। দেশটির সংবাদ মাধ্যমে এমন প্রতিবেদন আসছে।

কারিনাকে লোকসভা নির্বাচনের প্রার্থী করার দাবিতে মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস নেতা গুড্ডু চৌহান এবং আনিস খান দলের কাছে প্রস্তাব রেখেছেন। তাদের প্রস্তাব, কারিনাকে ভোপাল থেকে দাঁড়ানোর সুযোগ দিক দল।

কংগ্রেসের ওই দুই নেতার দাবি, কারিনাকে নিয়ে একটা ক্রেজ রয়েছে রাজ্যের যুব সম্প্রদায়ের মধ্যে। প্রচুর অনুরাগীও রয়েছে তার। ফলে এই সুযোগটা ইভিএমে কাজে লাগতে পারে।

শুধু তাই নয়, কিংবদন্তি ক্রিকেটার মনসুর আলী খান পাতৌদির পুত্রবধূ কারিনা। পাতৌদির জন্ম ভোপালেই। তার দাদা ভোপালের নবাব ছিলেন। তাই পাতৌদি পরিবারের প্রতি ভোপালের মানুষের আলাদা শ্রদ্ধা রয়েছে।

আনিস ও গুড্ডু তাই নিশ্চিতভাবে মনে করেন, কারিনা যদি ভোটে দাঁড়ান এই সব কারণগুলিই মিলিতভাবে তাকে জেতাতে সাহায্য করবে। দুই নেতা জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের কাছেও এ ব্যাপারে আলোচনা করবেন তারা।

কাপুর পরিবারের কেউ রাজনীতিতে আসেননি, তবে এই পরিবারের সঙ্গে রাজনীতির ভালোই যোগ ছিল। মনসুর আলী খান নিজেই ১৯৯১ সালে ভোপাল থেকেই লোকসভা নির্বাচনে লড়েছিলেন কংগ্রেসের টিকিটে। কিন্তু বিজেপির সুশীলচন্দ্র বর্মার কাছে এক লক্ষ ভোটের ব্যবধানে হেরে যান।

অবশ্য কারিনা কাপুরকে প্রার্থী করার তৎপরতায় কটাক্ষ করেছে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। ভোপালের বিজেপি সাংসদ অলোক সঞ্জর বলেন, ‘কংগ্রেসে কোনও নেতা নেই, তাই অভিনেতা দিয়ে নির্বাচনে লড়াই করতে চাইছে।’