আজ বৃহস্পতিবার রাত ১২:৩৮, ২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং, ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৩ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

রাবিতে সাংবাদিককে বেধড়ক পেটাল ছাত্রলীগ

নিউজ ডেস্ক | জাগো বার্তা .কম
আপডেট : জুলাই ৩১, ২০১৭ , ৭:০৫ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : গনমাধ্যম
পোস্টটি শেয়ার করুন

আবু সাঈদ সজল, রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্বদ্যিালয়ে ডেইলি স্টারের প্রতিনিধি আরাফাত রহমানকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে  এঘটনা ঘটে। আহত আরাফাত রহমানকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আরাফাত গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী ও রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির সদস্য।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, চট্রগ্রাম থেকে থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা দেশ ট্রাভেলস বাসে করে রাজশাহী আসছিল বিশ্ববিদ্যালয় শখা ছাত্রলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিজয়।
ছাত্রলীগের নেতা বিজয় বাসের ভিতরে সিগারেট খেতে চাইলে বাসের সুপারভাইজার ও সাধারণ যাত্রীদের নিষেধ করলে তাদের সাথে বাকবিত-ের সৃষ্টি হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে আসলে বিজয় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা খবর দিলে তারা এসে বাস বাস ভাঙচুর ও সুপারভাইজারকে ধরে মারধর করে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে সেখানে সংবাদ সংগহে করত যান বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ডেইলি স্টারের সাংবাদিক আরাফাত রহমান। ঘটনার কিছু স্থিরচিত্র তোলার সময় হঠাৎ আরাফাতকে এলোপাথাড়ি কিল-ঘুষিসহ বেধড়ক পেটাতে থাকে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিজয় ও যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক কে এম সাদ্দাম হোসেন সজীব, সাংগঠনিক সম্পাদক আবিদ আহসান লাবনসহ ৭-৮জন নেতাকর্মী। এসময় পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা বাঁধা দিলেও তাদের সামনে তাকে মারধর করে। পরে মেইন গেটে দায়িত্বরত পুলিশ ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাকে উদ্ধার করে। তার মাথায় ও চোখে মারাতœক জখম হয়। আহত অবস্থায় তাকে প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করা হয়। পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। তিনি এখন হাসাপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন।

ক্যাম্পাসে কর্মরত সাংবাদিকদের নিন্দা ও প্রতিবাদ:
এদিকে ছাত্রলীগ কর্তৃক সাংবাদিক মারধরের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি কায়কোবাদ আল মামুন ও সাধারণ সম্পাদক হুসাইন মিঠু, রাবি প্রেসক্লাব সভাপতি তাসলিমুল আলম তৌহিদ ও সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক সোহাগ এবং রাবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আদিব হাসান ও সাধারণ সম্পাদক ও মোস্তাফিজ রনি এবং স¦াক্ষরিত পৃথক বিবৃতিতে এ নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তারা।
বিবৃতিতে বলা হয়, তাকে যেভাবে নির্যাতন করেছে এতে প্রমাণিত হয় দেশের সংবাদ ও মিডিয়া কর্মীরা আজ নিরাপদ নয়। পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বরাবরই সাংবাদিকরা ক্ষমতাসীনদের হামলা, নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। সরকারদলীয় ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগ কর্তৃক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন সময়ে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনাগুলো তারই বহি:প্রকাশ। অবিলম্বে সাংবাদিক আরাফাত রহমানকে মারধরের সাথে জড়িত সকলকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।
পজিটিভ নিউজ বর্জন:
এদিকে ক্যাম্পাসে কর্মরত সকল সাংবাদিক সংগঠনগুলো অভিযুক্তদের যথা-উপযুক্ত শাস্তির না পর্যন্ত বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগের পজিটিভ নিউজ বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
মামলা দায়েরের সিদ্ধান্ত:
মামলা দায়েরের বিষয়ে বাদী আহত সাংবাদিক আরাফাত রহমান বলেন, ‘তিন জনের নাম উল্লেখপূর্বক অজ্ঞাতানাম ৭-৮ জনের নাম মামলা করবো। প্রস্তুতি চলছে আজকের মধ্যেই মামলা করা হবে।’
এদিকে কর্মসূচির ব্যাপারে বিশ^বিদ্যালয় রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি কায়কোবাদ আল মামুন বলেন, ‘সাংবাদিককে মারধরের প্রতিবাদে আগামীকাল (মঙ্গলবার) বেলা ১২টার দিকে বিশ^বিদ্যালয় কর্মরত সকল সাংবাদিক মানববন্ধনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এছাড়া অভিযুক্তদের শাস্তির দাবীতে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হবে।’
এব্যাপারে অভিযুক্তদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলে তাদের ফোন নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়। বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, ‘সাংবাদিক নির্যাতনের সাথে যদি কোন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী জড়িত থাকেন, তাহলে তদন্ত করে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’
বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর মজিবুল হক আজাদ খান বলেন, ‘বিষয়টি জানান পরে আমরা হাসাপাতালে দেখতে গিয়েছিলাম। অভিযোগ পেলে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’